The news is by your side.

ইউক্রেন বন্দরে জাহাজসহ আটকা বাংলাদেশি ২৯ নাবিক

0 44

 

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মধ্যে আটকা পড়েছেন বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের (বিএসসি) জাহাজ ‘বাংলার সমৃদ্ধি’র ২৯ নাবিক। জাহাজটির নাবিকদের সবাই বাংলাদেশি। ইউক্রেনের অলিভিয়া বন্দরে জাহাজসহ আটকা পড়েছেন তারা।

সাগরের ওই বন্দর এলাকায় রাশিয়া মাইন পুঁতে রাখায় জাহাজটি বের করা যাচ্ছে না। যুদ্ধক্ষেত্রে গোলাগুলির মধ্যে নাবিকদের প্রতিটি মুহূর্ত কাটছে চরম আতঙ্কে। এই অবস্থায় উদ্ধার পেতে সরকার, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বিএসসি’র প্রতি আকুতি জানিয়েছেন আটকে পড়া নাবিকেরা।

রাশিয়া-ইউক্রেনে পণ্য নিয়ে ইউক্রেনে যায় বাংলাদেশি জাহাজ ‘বাংলার সমৃদ্ধি’। এরমধ্যেই যুদ্ধ শুরু হয়ে যাওয়ায় ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনের বন্দরে আটকা পড়ে যায় নাবিকসহ জাহাজটি। রোববার দুপুরে ওমর ফারুক তুহিন জাহাজটিতে থাকা নাবিকদের একজন নিজের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর থেকে গণমাধ্যমকে নিজেদের আটকে পড়ার বিষয়টি জানান।

জাহাজটিতে মোট ২৯ জন নাবিক রয়েছেন উল্লেখ করে ফারুক তুহিন জানান, রুশ সেনারা সাগরে মাইন পুঁতে রাখায় বন্দর থেকে কোথাও যেতে পারছেন না তারা। সেখানে চারপাশে বোমা বিস্ফোরণ হচ্ছে। যেকোনো সময় বোমা বা মিসাইলের আঘাতে তারা প্রাণ হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন। ইতোমধ্যেই তাদের আশপাশে থাকা অন্তত পাঁচটি জাহাজ মিসাইল হামলায় বিধ্বস্ত হয়েছে। জাহাজে ১০ থেকে ১৫ দিনের খাবার রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই নাবিক।

ইউক্রেনে জাহাজসহ নাবিক আটকে পড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএসসি’র নির্বাহী পরিচালক পিযুষ দত্ত। তিনি বলেন, ‘গত ২১ ফ্রেব্রুয়ারি বাংলার সমৃদ্ধি নামের জাহাজটি ইউক্রেনে অলভিয়া বন্দরের আউটারে পৌঁছে। পরদিন ২২ ফেব্রুয়ারি জাহাজটি বন্দরের জেটিতে ঢুকে। ওই বন্দর থেকে কিছু পণ্য লোড করার কথা ছিল। কিন্তু রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধাবস্থা তৈরি হলে পণ্য লোড না করেই জাহাজটিকে ফিরে আসতে বলা হয়েছিল। কিন্তু স্থানীয় বন্দরের পাইলট না পাওয়ায় জাহাজটি জেটি ত্যাগ করতে পারেনি। এরইমধ্যে ২৩ ফ্রেব্রয়ারি যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। ফলে নাবিকসহ জাহাজটি আটকে পড়েছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে বিএসসি’র এই নির্বাহী পরিচালক বলেন, ‘ইউক্রেনে বন্দরের প্রবেশমুখে মাইনপুঁতে রাখা হয়েছে বলে আমরাও ধারণা করছি। তাই আপাতত তাদের সেখানেই অবস্থান করতে বলা হয়েছে। নাবিকদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা হচ্ছে। তারা যেখানে রয়েছেন সেটি কিছুটা সেইফজোন। তবে এই অবস্থায় কী করা যায় তা নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা হচ্ছে।’ জাহাজে বর্তমানে যে পরিমাণ খাবার রয়েছে তাতে নাবিকদের ১ মাস সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.