The news is by your side.

সংবিধান লঙ্ঘন করে যারা ক্ষমতায় এসেছিল তারা এ দেশের উন্নতি চায়নি: প্রধানমন্ত্রী

0 49

 

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সংবিধান লঙ্ঘন করে, মার্শাল ল’ জারি করে অবৈধভাবে যারা ক্ষমতায় এসেছিল তারা আসলে এ দেশের উন্নতি চায়নি। জাতির পিতাকে  সপরিবারে যারা হত্যা করেছিল তাদেরকে ক্ষমতায় বসানো হয়েছিল। স্বাভাবিকভাবে তাদের মন মানসকিতা ছিল স্বাধীনতাবিরোধী। যে কারণে বাংলাদেশের অগ্রগতি সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া ফার্টিলাইজার প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের  ৪টি প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ারি যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী  জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, তারা আমাদের বারবার ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে বলেই আজকে বাংলাদেশের উন্নয়ন করতে আমরা সক্ষম হয়েছি। দেশব্যাপী আমরা পরিবেশবান্ধব শিল্পের প্রসার ঘটাচ্ছি। পরিবেশ রক্ষা করা এখন সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশ সব থেকে বেশি ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। শিল্প কলকারখানা থেকে শুরু করে যত প্রতিষ্ঠান আমরা তৈরি করছি, সেটা পরিবেশবান্ধব যাতে হয় তার ব্যবস্থা আমরা নিচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, জাতির পিতা একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গড়ে তোলার দায়িত্ব হাতে নিয়েছিলেন। ১৯৭২ সালে রাষ্ট্রপতির আদেশ জারি করে ৫৯৩টি শিল্প প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হয়। তার কারণ যুদ্ধ চলাকালে এসব শিল্পের অধিকাংশ মালিক ছিল পাকিস্তানিরা। এগুলো পরিত্যক্ত রেখে তারা এ দেশ থেকে চলে যায়। ফলে এগুলো সম্পূর্ণ প্রায় বন্ধ হওয়ার উপক্রম ছিল। একটি মা যেমন তার রুগ্ন সন্তানকে সেবা-শুশ্রূষা করে সুস্থ করে তোলে, ঠিক সেইভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিল্পকে জাতীয়করণ করে, নতুনভাবে প্রশাসক নিয়োগ দিয়ে চালু করার পদক্ষেপ নেন।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালে ঘোড়াশাল এবং পলাশ দুটি পুরাতন ইউরিয়া সার কারখানার স্থলে একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন, অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর, শক্তি সাশ্রয়ী এবং পরিবেশবান্ধব নতুন সার কারখানা ‘ঘোড়াশাল পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা’ স্থাপনের উদ্যোগ আমরা গ্রহণ করি। নতুন এই সার কারখানায় দৈনিক ২ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন, বার্ষিক প্রায় ১০ লাখ মেট্রিক টন দানাদার ইউরিয়া সার উৎপাদন হবে।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.