The news is by your side.

মাস্ক মজুদ করা হচ্ছে কি না, তদারকির আদেশ হাইকোর্টের

0 259

 

বিশ্বে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশে মাস্কের দামও বাড়াতে থাকে। সব শেষ তিন ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হলে মাস্কের দাম দ্বিগুণের থেকে বেশি বেড়ে যায়।

এমন অবস্থায় কেউ মাস্কসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের দাম বাড়াতে এবং অবৈধ মজুত করতে না পারে, সেজন্য তদরকির আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নেওয়া পদক্ষেপ–সম্পর্কিত প্রতিবেদনের ওপর শুনানিতে আদালত এসব কথা বলেন। বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এই শুনানি হয়।

আদালত বলেন, করোনা ভাইরাস ছড়ানোর পর মাস্ক ব্যবহারের কথা বলা হচ্ছে। এখন মানুষের মধ্যে একটা সচেতনতা তৈরি হয়েছে। সেই সুযোগে এটা নিয়ে বাজারে পেঁয়াজের মতো কোনও ব্যবসা হয় কিনা, সেটা খেয়াল রাখতে হবে। প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করতে হবে। যাতে কেউ যেন বেশি দাম না নিতে পারে, মজুত না করতে পারে।

এ সময় আদালতে থাকা জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মওদুদ আহমদ বলেন, মাস্ক নিয়ে বলবো, এখন ১০ টাকার মাস্ক ১২০ টাকা নিচ্ছে। এটা নিয়ে একটা নির্দেশনা দিন। সরকার ইচ্ছা করলে মাস্ক ফ্রি দিতে পারে।

জবাবে আদালত বলেন, ১০ টাকায় ১৬ কোটি মাস্ক দেওয়ার মতো অবস্থা নেই। একটা হতে পারে, যারা সন্দেহের মধ্যে আছে বা আক্রান্ত, হাসপাতালে যায় তাদের জন্য ব্যবস্থা করা যায় কিনা।

আজ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নেওয়া পদক্ষেপের প্রতিবেদন হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হয়। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার এ প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।

গত ৫ মার্চ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বাংলাদেশ সরকার কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তা জানাতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট।

Leave A Reply

Your email address will not be published.