The news is by your side.

বরিশালে চলছে ৪৮ ঘন্টার লঞ্চ-বাস ধর্মঘট

0 48

বরিশাল অফিস

পৃথক পৃথক  দাবীতে  বরিশালে চলছে ৪৮ ঘন্টার লঞ্চ, বাস, মাইক্রোবাসসহ তিন চাকার যান মালিক ও শ্রমিকদের ধর্মঘট।

শুক্রবার  সকাল থেকে এসব যানবাহন চলাচল বন্ধ হলে  ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা। তবে অতিরিক্ত ভাড়ায় চলছে  প্যাডেল চালিত ও মটোর চালিত রিকশাগুলো।

শুক্রবার সকাল থেকে  বরিশাল নদী বন্দরে অভ্যন্তরীণ ও বরিশাল-ঢাকা  রুটের লঞ্চগুলো নোঙর করা। রুপাতলি ও নথুল্লাবাদ বাস স্টেশন থেকেও ছেড়ে যাইনি কোন বাস। সেইসঙ্গে সড়ক-মহাসড়কে টেম্পু, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবাস চলাচলও বন্ধ রয়েছে।

নগরীর অধিকাংশ রাস্তাঘাটই যাত্রীশূণ্য রয়েছে।তবে মহাসড়কে কোন যান চলাচল না করায় ভোগান্তিতে পড়ছে বিভিন্ন নৌ ও সড়ক রুটের যাত্রীরা।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ ( বিআইডব্লিউটিএ) বরিশালের নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিদর্শক কবির হোসেন বলেন, একটি লঞ্চে হামলার প্রতিবাদে গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর থেকে বরিশাল-ভোলা রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। আর আজ সকাল থেকে অভ্যন্তরীন সব রুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে, এর ফলে কোনো লঞ্চ যাত্রী নিয়ে বরিশাল ছেড়ে যায়নি, আবার কোনো লঞ্চ বরিশালে আসেনি।

 

বরিশাল জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক কিশোর কুমার দে জানান,বার বার বলা সত্বেও কোনভাবে মহাসড়কে থ্রি হুইলার ও ভাড়ায় চালিত মটরযান বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ৪ ও ৫ নভেম্বর ৪৮ ঘণ্টা বরিশাল থেকে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রেখে কঠোরভাবে ধর্মঘট চলছে৷

তাদের সাথে একাত্মতা পোষণ করে ধর্মঘট পালন করবে বরিশাল  বিভাগের বাকি ৫ জেলাসহ ফরিদপুর ও মাদারীপুর বাস মালিক সমিতি।

এর আগে মহাসড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচলবন্ধের দাবিতে তারা আগে থেকেই ৪ ও ৫ নভেম্বর ধর্মঘটের ঘোষণা দেন বাস মালিক গ্রুপ।

৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বরিশাল জেলার সকল রুটের থ্রি-হুইলার ৪ ও ৫ নভেম্বর বন্ধ রাখা এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই দুইদিন সকল রুটের থ্রি-হুইলার গাড়ি চলাচল  বন্ধ থাকবে বলে নিশ্চিত করেছেন বরিশাল জেলা মিশুক, বেবিট্যাক্সি, টেক্সিকার ও সিএনজি চালক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি কামাল হোসেন মোল্লা  ও সাধারণ সম্পাদক মো. মোশফিকুর রহমান দুলাল।

বিএন‌পির কেন্দ্রীয় ক‌মি‌টির যুগ্ম মহাস‌চিব অ্যাডভোকেট ম‌জিবর রহমান সরওয়ার জানান,  ৫ নভেম্বর বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় সমাবেশ বানচাল করার জন্য স্থানীয়  আওয়ামী লীগ বাস মালিক ও থ্রি হুইলার  শ্রমিক সংগঠন কে চাপ দিয়ে ধর্মঘট পালন করছে ৷

 

 

 

 

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.