The news is by your side.

নতুন প্রজন্মকে ‘গাজর আর মুলা’র সঙ্গে তুলনা কঙ্গনার

0 85

সমালোচনা আর কঙ্গনা যেন একে অন্যের সমার্থক হয়ে উঠছেন! প্রতিনিয়ত নিজের মন্তব্যের জন্য সমালোচনার মুখে পড়ছের অভিনেত্রী। কখনো ধর্মীয় ইস্যুতে সরব তিনি, কখনো বলিউডের নেপোটিজম নিয়ে উস্কে দিচ্ছেন বিতর্ক। কখনো বা ধুয়ে দিচ্ছেন বলিউডের মহারথীদের। কঙ্গনা মানেই অভিযোগ আর বিবাদের আতুঁড়ঘর!

স্পষ্টবাদী হিসেবে সুনাম এবং দুর্নাম উভয়ই আছে অভিনেত্রীর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর একটি পোস্ট মানেই বিতর্কের সূত্রপাত। তবে এবার অভিনেত্রী তীর লাগালেন নবীন প্রজন্মের দিকে। ‘জেন জি’ অর্থাৎ যাঁরা ১৯৯৫ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে যারা জন্মগ্রহণ করেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন কঙ্গনা। লিখলেন দীর্ঘ পোস্ট।

কঙ্গনার মতে, নবীন প্রজন্মের ছেলেমেয়েরা সারাদিন শুধু নিজেদের ফোনে ঘাড় গুঁজে বসে থাকেন। নিজেদের বাড়ি কেনারও ক্ষমতা নেই তাদের। প্রেমের সম্পর্কে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হতে ভয় পান, এমনকি শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতেও আলস্য রয়েছে। সেই তরুণ-তরুণীদের জন্য কঙ্গনার পরামর্শ, খেলাধুলো বা যোগাসন করা উচিত তাদের।

অভিনেত্রীর লেখায়, ‘জেন জি’র ছেলেমেয়েদের পা গুলো কাঠের মতো। কারণ তাঁরা সারাদিন ফোনে ঘাড় গুঁজে থাকে। একে অপরের সঙ্গে সরাসরি কথা বলে না কেউ, পর্যবেক্ষণ করে না, কোনও বই পড়ে না। অল্প পরিশ্রমে জীবনে উন্নতি চায় তারা। কিন্তু কর্মক্ষেত্রে ঊর্ধ্বতনদের সম্মান দিতে জানে না কেউ। তারা পছন্দের মানুষকে মুগ্ধ করার জন্য জামাকাপড় কেনে অথচ নিজেদের বাড়ি কেনারও সামর্থ্য নেই। প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়ে সম্পর্কে যেতে চায় না, বিয়ে করতে চায় না।’

কঙ্গনার দাবি, গবেষণায় দেখা গেছে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতেও আলস্য কাজ করে তাদের। নতুন প্রজন্মকে ‘গাজর আর মুলা’র সঙ্গে তুলনা করলেন তিনি। কঙ্গনার লেখায়, ‘চোখে নানারকম ভঙ্গি করা আর গালিগালাজ করা ছাড়া আর কিছুই পারে না। আমরা মিলেনিয়ালরা (১৯৮০ থেকে ১৯৯০-এর মাঝের সময়ে যাঁদের জন্ম) অনেক ভাল, আমরাই রাজ করছি।’

কঙ্গনাকে সর্বশেষ দেখা গেছে ‘ধাক্কার’ চলচ্চিত্রে। সামনে তাকে দেখা যাবে ‘এমার্জেন্সি’তে। এতে তার সাথে আরো অভিনয় করছেন অনুপম খের, শ্রেয়াস তালপাড়ে।

 

 

 

 

 

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.