The news is by your side.

ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে চকোলেট ফেসিয়াল

0 160

 

ত্বকের ভেতরে যে সব ময়লা আটকে থাকে, সেইসব ময়লা সহজে পরিষ্কার করা সম্ভব হয় না। ময়লা আর অতিরিক্ত তেল একত্রিত হয়ে হোয়াইটহেডস, ব্ল্যাকহেডসহ ত্বকের নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। এছাড়া ত্বকের নানা ধরণের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ফেসিয়াল বেশ কার্যকর।

চকলেট ফেসিয়াল কেন উপকারী :

চকলেট এ প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি এজিং উপাদান রয়েছে, যা ত্বকের বয়সের ছাপ রোধ করে। এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। এটি ত্বকের কোলাজেন বৃদ্ধি করে ত্বকে ব্রণ এবং কালো দাগ দূর করেএটি ত্বক হাইড্রেটেড রাখে। এটি সবধরণের ত্বকের জন্য উপযোগী।

বাড়িতে চকলেট ফেসিয়াল করবেন কীভাবে:

ফেসিয়ালের প্রথম ধাপ হল ত্বক পরিষ্কার করা। প্রথমে দুধ অথবা ক্লিনজার দিয়ে ত্বক ভালো করে পরিষ্কার করুন।

ত্বক পরিষ্কার করার পর ত্বক স্ক্রাব করার প্রয়োজন পড়ে। এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, ব্রাউন সুগার, কয়েক ফোঁটা ভ্যানিলা এসেন্স নিয়ে কোক পাউডারে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার মুখে গোল গোল করে মাসাজ করুন।

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য কোক পাউডার, জলের সাথে দুই চা চামচ লবণ এবং এক চা চামচ দুধ মিশিয়ে নিন। এরপর ১০ মিনিট মাসাজ করে কুসুম গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

এরপর ত্বকে টোনার ব্যবহার করুন। এটি ত্বকে খুলে যাওয়া ছিদ্রগুলো বন্ধ করতে সাহায্য করে। গোলাপজল ভাল টোনার হিসেবে কাজ করে থাকে।

এবার ফেসপ্যাকের জন্য (তৈলাক্ত ত্বকের) জন্য লেবুর খোসার গুঁড়ো, টকদই এবং চকলেটের গুঁড়ো মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। স্কিনে লাগিয়ে নিন। আধ ঘন্টা রাখার পর ধুয়ে ফেলুন।

ড্রাই স্কিনের জন্য দুই টেবিল চামচ চকলেট গুঁড়ো, এক টেবিল চামচ মধু এবং চার টেবিল চামচ দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। প্রথম স্টিম করে ত্বকের ছিদ্রগুলো খুলে ফেলুন তারপর প্যাক লাগান। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

এছাড়া বলিরেখা দূর অথবা অ্যান্টি এজিং রোধের জন্য এক চা চামচ কোকো পাউডার দুই চা চামচ চায়ের লিকারের সঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন, এর সঙ্গে এক চা চামচ কাঁচা দুধ মেশান। ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন স্কিনে। এরপর হালকা গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি স্কিনে বলিরেখা পড়া রোধ করে।হয়ে গেল আপনার চকলেট ফেসিয়াল। বাড়িতেই ট্রাই করুন আর হয়ে উঠুন ঝলমলে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.