The news is by your side.

করোনা:  রাজশাহীর সঙ্গে সারাদেশের  বাস চলাচল বন্ধ

0 429

 

করোনাভাইরাস ছড়ানোর আশংকায় রাজশাহী বিভাগের সঙ্গে সব বিভাগের দূরপাল্লার বাস চলাচল  অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বাস মালিক ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার পর রাজশাহী থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, বরিশাল, খুলনা বিভাগের সব রুটের বাস বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে রাজশাহী বিভাগের অভ্যন্তরীণ রুটে সীমিত আকারে বাস চলাচল করবে বলে জানিয়েছেন বাস মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা।

রাজশাহী মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন চৌধুরী জানান, করোনাভাইরাস ছাড়ানোর আশংকায় জনপ্রতিনিধি, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, প্রশাসন, সিটি করপোরেশনসহ সেক্টরের সিদ্ধান্তে দুরপাল্লার এসব বাস চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এখান কোনো বাস বিভাগের বাইরে যাবে না। আবার অন্য বিভাগ থেকেও কোনো বাস আসবে না। তবে বিভাগের ভেতরের জেলাগুলোতে সীমিত আকারে বাস চলাচল করবে।

এদিকে, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) রাজশাহী সার্কেলের লাইসেন্স সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২২ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিআরটিএ রাজশাহী সার্কেলের লাইসেন্স সংক্রান্ত সব কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) সদর কার্যালয় ঢাকার নির্দেশনায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে বৃহস্পতিবার বিকেলে এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছে বিআরটিএ রাজশাহী সার্কেল কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রাজশাহীতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগী পাওয়া যায়নি। তবে বিদেশফেরত বেশ কিছু মানুষকে রাখা হয়েছে হোম কোয়ারেন্টা্ইনে।

এদিকে সকাল ৮ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা পারসোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই)-এর দাবিতে কর্মবিরতি পালন করেছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. ইকবাল হাসান হিমেল জানান, হাসপাতাল থেকে তাদের ব্যক্তিগত সুরক্ষার কোনো উপকরণ দেয়া হচ্ছে না। ডাক্তাররা কাজ করলেও তারা মাস্ক, হ্যান্ডগ্লোবস, হ্যান্ডস্যানিটাইজার ন্যুনতম সরবরাহ পাচ্ছে না। পরে হাসপাতাল পরিচালক কিছু পরিমাণে উপকরণ সরবরাহ করলে আবারো কাজে যোগদান করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.