শহীদ মিনারের পাশে অবৈধ স্থাপনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভাঙার নির্দেশ Reviewed by Momizat on . কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে সাধারণ একটি কবর ঘিরে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা স্থাপনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে সাধারণ একটি কবর ঘিরে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা স্থাপনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ Rating: 0
You Are Here: Home » slider » শহীদ মিনারের পাশে অবৈধ স্থাপনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভাঙার নির্দেশ

শহীদ মিনারের পাশে অবৈধ স্থাপনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভাঙার নির্দেশ

HC
কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে সাধারণ একটি কবর ঘিরে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা স্থাপনা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ভেঙে ফেলার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট।

এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১২ সালে দেওয়া রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের হাই কোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই রায় দেয়।

রায়ের অনুলিপি পাওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে অবৈধ স্থাপনা সরাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল ডিভিশন), ঢাকার জেলা প্রশাসক ও শাহবাগ থানার ওসিকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ ও আসাদুজ্জামান সিদ্দিকী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

২০১২ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি ‘বেড়ে উঠছে কথিত মাজার/হুমকিতে শহীদ মিনার’ শিরোনামে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। ওই প্রতিবেদন যুক্ত করে ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন একই বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি জনস্বার্থে হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করেন।  রিটে বলা হয়, শহীদ মিনারের ২০ কাঠা জায়গা দখল করে একটি সাধারণ কবরকে ঘিরে তেলশাহ’র মাজার নামে কথিত মাজার গড়ে উঠেছে। মাজার ব্যবসায়ীরা এখন কথিত পীরের কবরের ওপর গম্বুজ ও কবরের পাশে কমপ্লেক্স নির্মাণেরও পাঁয়তারা করছে। এতে মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে মহান ভাষা আন্দোলনের শহীদদের স্মতি স্মারক ও বাঙালি চেতনার প্রতীক কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার।

রিটের শুনানি নিয়ে ওইদিন-ই আদালত মাজারের সব স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলাসহ সরকারের প্রতি রুল জারি করেন। রুলে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের জমি রক্ষায়  কেন নির্দেশ  দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। বৃহস্পতিবার ওই রুলের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে আদালত রায় দেন।

রায়ের পর মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘শহীদ মিনার ভাষা শহীদদের একটি স্মৃতি। তাদের আন্দোলনের সূত্র ধরেই আমরা মাতৃভাষাকে পেয়েছি। বিশ্বে আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হচ্ছে। অথচ তার পাশেই কিছু লোক নিজেদের আর্থিক লাভের জন্য কথিত মাজার  তৈরি করেছে, যদিও সেখানে কোনো সুফি সাধকের কবর ছিল না। তারা সেখানে সুউচ্চ মিনার তৈরিরও পরিকল্পনা করছিল। গণমাধ্যমের সূত্র ধরে বিষয়টি আদালতের নজরে নেওয়ায় আদালত শহীদর মিনারের পবিত্রতা রক্ষায় কবরটিকে বহাল রেখেই এর আশেপাশে গড়ে উঠা সব ধরনের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দিয়েছেন।’

About The Author

admin

সংবাদের ব্যাপারে আমরা সত্য ও বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাস করি।বিশ্বাস করি, মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনায়। আমাদের প্রত্যাশা একাত্তরের চেতনায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাক সুখী সমৃদ্ধশালী উন্নত দেশের পর্যায়ে।

Number of Entries : 7211

Leave a Comment

সম্পাদক : সুজন হালদার, প্রকাশক শিহাব বাহাদুর কতৃক ৭৪ কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স, ২৫৩-২৫৪ এলিফ্যান্ট রোড, কাঁটাবন, ঢাকা থেকে প্রকাশিত। ফোনঃ 02-9669617 e-mail: info@visionnews24.com
Design & Developed by Dhaka CenterNIC IT Limited
Scroll to top