রোহিঙ্গা সঙ্কটের অবসান ঘটাতে আমরা বদ্ধপরিকর : নিরাপত্তা পরিষদ Reviewed by Momizat on . রোহিঙ্গা পরিস্থিতিকে একটি মানবিক সঙ্কট হিসেবে বর্ণনা করে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি দল বলেছে, সমাধান না করে এই সমস্যা এভাবে ফেলে রাখা যায় না। রোহিঙ্গা রোহিঙ্গা পরিস্থিতিকে একটি মানবিক সঙ্কট হিসেবে বর্ণনা করে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি দল বলেছে, সমাধান না করে এই সমস্যা এভাবে ফেলে রাখা যায় না। রোহিঙ্গা Rating: 0
You Are Here: Home » slider » রোহিঙ্গা সঙ্কটের অবসান ঘটাতে আমরা বদ্ধপরিকর : নিরাপত্তা পরিষদ

রোহিঙ্গা সঙ্কটের অবসান ঘটাতে আমরা বদ্ধপরিকর : নিরাপত্তা পরিষদ

unsc

রোহিঙ্গা পরিস্থিতিকে একটি মানবিক সঙ্কট হিসেবে বর্ণনা করে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি দল বলেছে, সমাধান না করে এই সমস্যা এভাবে ফেলে রাখা যায় না।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে দেখে সোমবার বাংলাদেশ ছাড়ার আগে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতিনিধি দলের পক্ষে কুয়েতের স্থায়ী প্রতিনিধি মনসুর আয়াদ আল-ওতাইবি বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের বলেন, “যে বার্তা আমরা মিয়ানমার, রোহিঙ্গা শরণার্থী আর পুরো বিশ্বকে দিতে চাই, তা হল এই সঙ্কটের অবসান ঘটাতে এবং সমাধানের একটি পথ খুঁজে বের করতে আমরা বদ্ধপরিকর।”

জাতিসংঘের সবচেয়ে ক্ষমতাধর পর্ষদ হিসেবে বিবেচিত নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ দেশের প্রতিনিধিসহ ৪০ সদস্যের এই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা রোববার কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরে দেখেন। সোমবার তারা রওনা হন মিয়ানমারের নেপিদোর উদ্দেশ্যে।

গতবছর অগাস্টে মিয়ানমারের রাখাইন থেকে নতুন করে রোহিঙ্গাদের ঢল শুরু হয়ার পর এই প্রথম জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কোনো প্রতিনিধি দলে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করল।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের দেখতে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দলটি শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় একটি বিশেষ ফ্লাইটে সরাসরি কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছায়। ওইদিন রাতেই উখিয়ার ইনানীতে হোটেল রয়েল টিউলিপে জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা, রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রত্যাবাসন কমিশনার এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তারা।

পরদিন রোববার সকালে জাতিসংঘের প্রতিনিধিরা বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায় আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের দেখতে যান। পরে সেখান থেকে তারা যান উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে। সেখানে তারা রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখেন এবং তাদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে তারা সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। ব্রিফিংয়ে তারা বলেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমার থেকে এসেছে, তাই রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে।

২৪ সদস্যের প্রতিনিধি দলে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, চীন, ফ্রান্সসহ জাতিসংঘে নিরাপত্তা পরিষদের ১৫টি সদস্য দেশের প্রতিনিধি ছিলেন। এ ছাড়াও ছিলেন নেদারল্যান্ডস, কুয়েত, বলিভিয়া, ইথিওপিয়া, কাজাখস্তান, পেরু, পোল্যান্ড, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো, বার্বাডোজ, জর্ডান ও আইভরি কোস্টের প্রতিনিধি।

সোমবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পরই একই ইস্যুতে দু’দিনের সফরে মিয়ানমারের উদ্দেশ্যে রওনা হয়।

 

About The Author

admin

সংবাদের ব্যাপারে আমরা সত্য ও বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাস করি।বিশ্বাস করি, মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনায়। আমাদের প্রত্যাশা একাত্তরের চেতনায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাক সুখী সমৃদ্ধশালী উন্নত দেশের পর্যায়ে।

Number of Entries : 7902

Leave a Comment

সম্পাদক : সুজন হালদার, প্রকাশক শিহাব বাহাদুর কতৃক ৭৪ কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স, ২৫৩-২৫৪ এলিফ্যান্ট রোড, কাঁটাবন, ঢাকা থেকে প্রকাশিত। ফোনঃ 02-9669617 e-mail: info@visionnews24.com
Design & Developed by Dhaka CenterNIC IT Limited
Scroll to top