The news is by your side.

  ভালবাসার জন্য যত দূর প্রয়োজন যেতে পারে ঋতাভরী!

0 23

‘শেষ থেকে শুরু’ জিতের কেরিয়ারে ৫০তম ছবি। সে জন্য নাকি বিশেষ প্রস্তুতি নিয়েছিলেন নায়ক। ঋতাভরী বললেন, ‘‘এই ছবিটা জিত্দার কাছে খুব স্পেশ্যাল। প্রিপারেশন খুব ভাল ছিল। আলাদা করে প্রত্যেকটা জিনিসের কেয়ার নিয়েছিল। ওর প্রথম ছবি ‘সাথী’ রিলিজের সময় আমি ওয়ান বা টু-তে পড়তাম। সব সময়েই ওর সঙ্গে কাজ করতে চেয়েছি। ফ্লোরে সব সময় হাই স্পিরিটে থাকত। জিত্দার কিন্তু একটা আলাদা পার্সোনালিটি রয়েছে।’’

ফারজানা ভার্সেস ঋতাভরী

এই ছবিতে ঋতাভরীর চরিত্রের নাম ফারজানা। বোল্ড, স্ট্রং একটি মেয়ে। কিন্তু জিতের প্রতি ভালবাসা মাথায় রেখেই সব সিদ্ধান্ত নেয় সে। ‘‘ভালবাসার জন্য যত দূর প্রয়োজন তত দূর যেতে পারে ফারজানা। আমি কিন্তু কখনও একটা ছেলের জন্য জীবন দিয়ে দেব না,’’ হাসতে হাসতে বললেন ঋতাভরী। তবে তাঁর চরিত্রটি পজিটিভ, আর অভিনেত্রী হিসেবে এতটা বিস্তারিত কাজের সুযোগ এর আগে পাননি, এটা স্পষ্ট জানালেন।

জিত্, রাজ দ্বন্দ্ব?

‘শেষ থেকে শুরু’র প্রযোজক জিত্। পরিচালক রাজ চক্রবর্তী। শোনা যায়, শুটিংয়ে নাকি রাজের কাজে কখনও কখনও একটু বেশি রকমই নাক গলাতেন জিত্! সত্যি নাকি?

এই সম্ভাবনা যদিও একেবারেই উড়িয়ে দিলেন ঋতাভরী। তাঁর কথায়, ‘‘কস্টিউম, লাইট, ফ্রেম— সব কিছু দেখে নিত রাজদা। খেয়াল রাখত। আর আমি তো কখনও দেখিনি রাজদার কাজে জিত্দা ইন্টারফেয়ার করছে…। হ্যাঁ, নিজস্ব ইনপুট দিত। কিন্তু সেটা কখনও ওভারল্যাপ করত না।’’

কোয়েলের সঙ্গে ইকুয়েশন

এ ছবিতে জিত্-কোয়েল জুটিকে ফের বড়পর্দায় দেখবেন দর্শক। শুটিংয়ে কোয়েলের সঙ্গে কেমন ইকুয়েশন তৈরি হয়েছিল ঋতাভরীর? ‘‘কোয়েলদি খুবই পোলাইট, সাপোর্টিভ। আমার তো অনুষ্কা বা কল্কির তুলনায় কম ট্যালেন্টেড মনে হয়নি। ওর সঙ্গে দু’-একটা সিনই রয়েছে। আমার গল্পটা ঢাকার। আর ওরটা কলকাতার,’’ শেয়ার করলেন ঋতাভরী।

কোয়েলের থেকে কি প্রচারে কম গুরুত্ব?

ঋতাভরী মনে করেন, জিত্-কোয়েল জুটিকে দর্শক ভালবাসে। তাঁদের টানেই সিনেমা হলে গিয়ে ছবিটা দেখবেন দর্শক। ফলে জিত্ যে ভাবে প্রোমোশনের পরিকল্পনা করেছেন, তাতে খুশি ঋতাভরী।

প্রেম-অপ্রেমে টলিউড

স্পষ্টবক্তা হিসেবেই ঋতাভরীকে চেনেন ইন্ডাস্ট্রির মানুষ। ব্যক্তিগত জীবন হোক বা কেরিয়ার, সোজা কথা সোজা ভাবে বলতে পছন্দ করেন তিনি। ঠিক তেমন ভাবেই জানিয়ে দিলেন, টলিউডের কোনও ব্যক্তিত্ব তাঁর বয়ফ্রেন্ড হবেন না। এক সময় সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঋতাভরীর সম্পর্ক নিয়ে সরগরম ছিল ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু সে সম্পর্ক স্থায়ী হয়নি। সে কারণেই কি প্রেমের কোর্সে টলিউড ব্রাত্য?

অভিনেত্রীর জবাব, ‘‘সৃজিত আমার থেকে বয়সে অনেক বড়। আর ওর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে আমি তো কিছু বলিনি কখনও। এখন যে ডিসিশনটা নিয়েছি, তার পিছনে সৃজিত কোনও কারণ নয়। আসলে ইন্ডাস্ট্রির বয়ফ্রেন্ড হলে সে তার নিজের জীবনে সফল বলে, আমার সাফল্যও যেন তাকে দিয়ে দিতে হবে। এটাই যেন নিয়ম। এটা মেনে নিতে পারব না।’’

কোন সম্পর্ক ‘শেষ থেকে শুরু’ করতে চান?

‘‘(দীর্ঘ নীরবতা) কয়েক বছর আগে ইউএসএ-তে এক জনের সঙ্গে সম্পর্ক হয়েছিল। কিন্তু লং ডিসট্যান্সের কারণে কন্টিনিউ হয়নি। ব্রেকআপ হয়ে যায়। সেই সম্পর্কটা হয়তো ‘শেষ থেকে শুরু’ করতে চাই…,’’ ঋতাভরীর গলায় তখন স্বাভাবিক উচ্ছ্বাস যেন একটু কম।

 

 

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.