The news is by your side.

ভারতীয় নতুন ওষুধে ৮০ শতাংশ মশা অজ্ঞান

0 30

 

 

ভারত থেকে আনা নতুন মশার ওষুধের পরীক্ষা চালিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এতে প্রাথমিক পরীক্ষার প্রথম ধাপে ৮০ শতাংশের বেশি মশা অজ্ঞান বা নক ডাউন হয়েছে। তবে এ পরীক্ষার দ্বিতীয় ধাপের ফলাফল অর্থাৎ প্রথম পরীক্ষার ২৪ ঘণ্টা পর চূড়ান্ত ফলাফল বিশ্লেষণ করা হবে বুধবার।

মঙ্গলবার ডিএসসিসি নগর ভবনে তিন ধরনের ওষুধের তিনটি করে মোট নয়টি নমুনা ওষুধের পরীক্ষা করা হয়। এ সময় ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন এবং প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার উপস্থিতিতে পরীক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করেন ডিএসসিসির প্রধান ভান্ডার ও ক্রয় কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান। পরীক্ষায় ছিলেন আইইডিসিআর এর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডাঃ মিনতি সাহা এবং কৃষি অধিদফতরের প্ল্যান্ট প্রটেকশন উইং এর যুগ্ম পরিচালক ড. আমিনুল ইসলাম।

এতে প্রথম ওষুধ ডেলটামেথ্রিন ১.২৫% ইউএলভি এর তিনটি খাচায় অজ্ঞান হওয়া বা নক ডাউন মশার শতকরা পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ৮৪.৯২। দ্বিতীয় ওষুধ মেলাথিয়ন ৫% আরএফভি এর তিনটি নমুনায় নক ডাউন হওয়া মশার শতকরা পরিমাণ যথাক্রমে ৯২ এবং ১০০ ও ১০০ শতাংশ। সর্বশেষ টেট্রামিথইন এর তিনটি নমুনায় নক ডাউন হওয়া মশার শতকরা পরিমাণ যথাক্রমে ৯০, ১০০ এবং ৮৪ শতাংশ।

পরীক্ষার ফলাফল যাচাই শেষে এক ব্রিফিং এ মোহাম্মদ নুরুজ্জামান বলেন, মশার ওষুধ আমরা তিন ভাবে পরীক্ষা করি – ফিল্ড টেস্ট মানে আজ যা হল, এরপর ল্যাব টেস্ট এবং সর্বশেষ প্ল্যান্ট প্রটেকশন টেস্ট। আজকের পরীক্ষায় প্রতিটি নমুনাতেই নক ডাউন হওয়া মশার শতকরা পরিমাণ ৮০ শতাংশের এর উপরে। সাধারণত কোনো ওষুধ ৮০ শতাংশের উপরে পরীক্ষিত হলে সেটি আমরা গ্রহণ করি। এরপর এই নমুনাগুলো ২৪ ঘণ্টা পর আবার দেখা হবে যে কতগুলো মারা গেল। তাতে ফিল্ড টেস্টের সম্পূর্ণ ফলাফল পাওয়া যাবে।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.