পাকিস্তান আর ইসরাইলের বিরুদ্ধে ঢাকায় বিক্ষোভ Reviewed by Momizat on . বাংলাদেশে সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের জন্য পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ও ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদকে দায়ী করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে কয়েকটি সংগঠন। যুদ্ বাংলাদেশে সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের জন্য পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ও ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদকে দায়ী করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে কয়েকটি সংগঠন। যুদ্ Rating: 0
You Are Here: Home » slider » পাকিস্তান আর ইসরাইলের বিরুদ্ধে ঢাকায় বিক্ষোভ

পাকিস্তান আর ইসরাইলের বিরুদ্ধে ঢাকায় বিক্ষোভ

160608084004_bangla_protest_to_pakistan_high_commission_surrounded_640x360_focusbangla_nocredit

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডের জন্য পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ও ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদকে দায়ী করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে কয়েকটি সংগঠন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে বাধা আর সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডগুলো একই সূত্রে গাঁথা বলে তারা মনে করেন।

বিক্ষোভকারীরা পাকিস্তান দূতাবাস ঘেরাও করার চেষ্টা করলেও পুলিশ রাস্তায় আটকে দেয়।

বুধবার সকালে এসব সংগঠন গুলশান দুই নম্বর চত্বর থেকে পাকিস্তান দূতাবাসের দিকে রওনা দিলেও পুলিশ আটকে দেয়। পরে সেখানেই তারা সমাবেশ করেন।

কর্মসূচীতে আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগসহ বেশ কয়েকটি সংগঠন অংশ নেয়।

গুলশান অঞ্চলের উপ পুলিশ কমিশনার মোশতাক আহমেদ খান বিবিসিকে জানান, ”কয়েকটি সংগঠন শান্তিপূর্ণভাবে পাকিস্তান দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচী পালন করছিল। তবে কূটনীতিক এলাকা হওয়ায় সেখানে মিছিল সমাবেশ করা যায় না। তাই আমরা ব্যারিকেড দিয়ে তাদের সেখানে যেতে বাধা দিয়েছি। তারা কিছুক্ষণ গুলশান চত্বরে অবস্থান করে চলে যান।”

কর্মসূচীটির আয়োজক ক্যাপ্টেন এ বি তাজুল ইসলাম (অব) বিবিসিকে বলেন, ”যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে বাধা প্রদান এবং সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডগুলো সবই এক সূত্রে গাঁথা। পাকিস্তান এবং ইসরায়েল একে অপরের সাথে মিলে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করতে যড়যন্ত্র করছে। তারা বাংলাদেশের ক্ষতি করার চেষ্টায় সব পথে ব্যর্থ হয়েছে। এখন আইএসআই এবং মোসাদ মিলে গ্রামেগঞ্জের নিরীহ মানুষজন হত্যা করছে। তার প্রতিবাদ জানাতেই পাকিস্তান দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচী।”

ইসরায়েলের কোন দূতাবাস বাংলাদেশে না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে জনমত তৈরি করা হবে বলে তিনি জানান।

আওয়ামী লীগ নেতা এ কে এম রহমত উল্লাহ বলেন, ”নিজামী হত্যাকাণ্ডের পর তারা বিবৃতি দিয়েছে, যুদ্ধাপরাধী বিচারে নাক গলাচ্ছে, এখন দেশের এসব হত্যাকাণ্ডের পেছনেও তারা ইন্ধন যোগাচ্ছে। তাই আমরা তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে পাকিস্তান দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচী পালন করছি।”

ঘেরাও কর্মসূচীর পর বিভিন্ন সংগঠনের কয়েকশ কর্মী মানবন্ধন করে।

About The Author

admin

সংবাদের ব্যাপারে আমরা সত্য ও বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাস করি।বিশ্বাস করি, মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনায়। আমাদের প্রত্যাশা একাত্তরের চেতনায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাক সুখী সমৃদ্ধশালী উন্নত দেশের পর্যায়ে।

Number of Entries : 7237

Leave a Comment

সম্পাদক : সুজন হালদার, প্রকাশক শিহাব বাহাদুর কতৃক ৭৪ কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স, ২৫৩-২৫৪ এলিফ্যান্ট রোড, কাঁটাবন, ঢাকা থেকে প্রকাশিত। ফোনঃ 02-9669617 e-mail: info@visionnews24.com
Design & Developed by Dhaka CenterNIC IT Limited
Scroll to top