‘দাওয়াহ ইলাল্লাহ’ কি আইএস এর সহযোগী সংগঠন ? Reviewed by Momizat on . সিলেটে অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুল দাওয়াহ ইলাল্লাহ নামে একটি অনলাইন ফোরাম থেকে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়। গত ৩ মার্চ অধ্যাপক জাফর ইকবালের ওপর হামলার সিলেটে অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুল দাওয়াহ ইলাল্লাহ নামে একটি অনলাইন ফোরাম থেকে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়। গত ৩ মার্চ অধ্যাপক জাফর ইকবালের ওপর হামলার Rating: 0
You Are Here: Home » slider » ‘দাওয়াহ ইলাল্লাহ’ কি আইএস এর সহযোগী সংগঠন ?

‘দাওয়াহ ইলাল্লাহ’ কি আইএস এর সহযোগী সংগঠন ?

dawah

সিলেটে অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারী ফয়জুল দাওয়াহ ইলাল্লাহ নামে একটি অনলাইন ফোরাম থেকে জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়। গত ৩ মার্চ অধ্যাপক জাফর ইকবালের ওপর হামলার পর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট তদন্ত করে বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। পুলিশ এখন তদন্ত করছে দাওয়াহ ইলাল্লাহ এই গ্রুপে কারা কারা যুক্ত আছে। অনলাইনে টেলিগ্রাম অ্যাপস ব্যবহার করে গ্রুপে যুক্তরা যোগাযোগ চালিয়ে যান।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের এক কর্মকর্তা বলেন, দাওয়াহ ইলাল্লাহ অনলাইনের গ্রুপে জঙ্গিবাদের আদর্শকে সামনে রেখে সকল ধরনের প্রচারণা চালানো হচ্ছে। জিহাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। মুসান্না নাম দিয়ে এক ব্যক্তি লিখেছেন, ফয়জুলকে আটকের পর মনে হচ্ছে দেশে সব জঙ্গিকে ধরে ফেলেছে। হামলার দিন ৩ মার্চ সন্ধ্যায় দাওয়া ইলাল্লাহ গ্রুপে তারেক বিন জিয়াদ নামে একজন লিখেছে, আল্লাহ আকবর। জাফর ইকবালের ওপর ছুরি হামলা। এছাড়া তালিবুল ইলম, আবু আহমদ, সময়ে পথিক, খালিদ বিন ওয়ালিদসহ অনেক নামে কথোপকথন চালানো হয়েছে। এসব নাম ভুয়া নাকি সঠিক তা কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তদন্ত করছে। কারা এই গ্রুপে যুক্ত রয়েছে তাও তদন্ত করা হচ্ছে।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের ওই কর্মকর্তা আরো জানান, দাওয়াহ ইলাল্লাহ গ্রুপের ফোরামে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে নাস্তিক আখ্যায়িত করে তাকে কীভাবে হত্যা করা যায়, সেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হতো। ফয়জুল নিজে থেকে জাফর ইকবালকে হত্যার দায়িত্ব নেয়। এরপর জাফর ইকবালকে কীভাবে হত্যা করা হবে, সেসব বিষয়ে ভার্চুয়াল আলোচনার মাধ্যমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় ফয়জুলকে। দাওয়াহ ইলাল্লাহ হলো বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত আনসার আল ইসলামের একটি অনলাইন ফোরাম। যেখানে নির্দিষ্ট আইডির মাধ্যমেই কেবল প্রবেশ করা যায়। এরআগে বিভিন্ন সময়ে আনসার আল ইসলামের যেসব সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে, তারাও দাওয়াহ ইলাল্লাহ ফোরামের মাধ্যমে তাদের সাংগঠনিক কার্যক্রমের কথা স্বীকার করেছে। দাওয়াহ ইলাল্লাহ গ্রুপে আল-কায়েদা এবং আইএসের নানারকম ভিডিও, ইরাক-সিরিয়ার ভিডিওসহ নানারকম জঙ্গিবাদী প্রপাগান্ডা প্রচারণা চালানো হয়।

তিনি আরো বলেন, হামলাকারী ফয়জুলের কয়েকজন সহযোগীকে চিহ্নিত করা হয়েছে। সুমন নামে ফয়জুলের এক সহকর্মীও পলাতক। সুমনের সঙ্গে ফয়জুল তার বোনের বিয়ে দিতে চেয়েছিল। সুমনও জঙ্গিবাদ মতাদর্শের হতে পারে। গাজীপুর থেকে গ্রেফতার হওয়া এনামুলের কাছ থেকে ফয়জুলের ট্যাব উদ্ধার করা হয়েছে। ওই ট্যাব থেকে আরো তথ্য উদ্ধার করা সম্ভব হবে।

 

 

About The Author

admin

সংবাদের ব্যাপারে আমরা সত্য ও বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাস করি।বিশ্বাস করি, মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনায়। আমাদের প্রত্যাশা একাত্তরের চেতনায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাক সুখী সমৃদ্ধশালী উন্নত দেশের পর্যায়ে।

Number of Entries : 7849

Leave a Comment

সম্পাদক : সুজন হালদার, প্রকাশক শিহাব বাহাদুর কতৃক ৭৪ কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স, ২৫৩-২৫৪ এলিফ্যান্ট রোড, কাঁটাবন, ঢাকা থেকে প্রকাশিত। ফোনঃ 02-9669617 e-mail: info@visionnews24.com
Design & Developed by Dhaka CenterNIC IT Limited
Scroll to top