The news is by your side.

জাতীয় দলে খারাপ খেললে সন্তানকেও জবাবদিহি করতে হয় : মেসি

0 286

 

ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনার হয়ে তিনি সেরা। কিন্তু জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপালেই মেসি আর মেসিতে থাকেন না। প্রত্যাশার ফানুস চুপসে দিয়ে অনুরাগীদের বারবারই হতাশ করে মেসি’র পারফরম্যান্স। একইসঙ্গে হতাশ এবং ক্ষুব্ধ মেসি জানালেন, এই কারণে তার ছয় বছরের পুত্রসন্তান থিয়াগোর কাছেও তাকে জবাবদিহি করতে হয়।

গত শুক্রবার দেশীয় একটি রেডিও স্টেশনে মেসি জানান, ‘তোমায় দেশের জার্সি গায়ে কেন দেখতে চায় না ওরা? একাধিকবার আমায় এমন প্রশ্নবাণে বিদ্ধ করেছে থিয়াগো।’ এককথায় জাতীয় দলে খেলার প্রশ্নে ঘরে-বাইরে প্রশ্নবাণে বিদ্ধ করা হয় আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলারকে। মেসির কথায়, ‘ইউটিউবে নানান ভিডিও ঘেঁটে থিয়াগো আমায় প্রশ্ন করে কেন ওরা তোমার খেলা দেখতে চায় না?’

ফুটবল বিশ্বকাপে দেশের হতাশাজনক পারফরম্যান্সের পর আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে সাময়িক বিরতিতে যান মেসি। কিন্তু ৮ মাস পর দেশের জার্সি গায়ে সম্প্রতি আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার ফিরে আসার ম্যাচে ভেনেজুয়েলার কাছে ১-৩ গোলে বিধ্বস্ত হতে হয় আর্জেন্টিনাকে। খারাপ পারফরম্যান্সের কারণে ফের সমালোচনার তীর বর্ষিত হয় মেসিকে উদ্দেশ্য করে। সেই ম্যাচে চোটও পেয়ে বসেন বার্সেলোনা তারকা।

মরক্কোর বিরুদ্ধে পরবর্তী ম্যাচে মেসিকে ছাড়াই জয় পায় আর্জেন্টিনা। এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মেসি জানান, ‘অনেকের নিষেধ সত্ত্বেও জাতীয় দলের হয়ে আমি খেলা চালিয়ে যেতে চাই। জাতীয় দলের হয়ে খেতাব জিততে চাই।’ ক্লাব ফুটবলে তারকা ফুটবলারদের পাশে পেয়ে স্বমহিমায় ভাস্বর হয়ে ওঠেন মেসি। কিন্তু আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার খারাপ পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশায় একাধিকবার সুর চড়িয়েছে দেশীয় সংবাদমাধ্যমও।

মেসির কথায়, ‘সমর্থকেরা আমায় দুশ্চরিত্র বলতেও পিছপা হয় না। কিন্তু হতাশ হই এই ভেবে যে তারা আমার পরিবারের মত। দিন-দিন আমায় নিয়ে মিথ্যা খবর পরিবেশন হওয়ায় আমি ক্লান্ত।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.