গ্রীষ্মের তেজ প্রতিহত করে থাকুন সুস্থ ও প্রাণোচ্ছল Reviewed by Momizat on . লাইফস্টাইল ডেস্ক গ্রীষ্মকাল তার পুরো তাপ নিয়ে জাঁকিয়ে বসেছে। দিনে দিনে তেজ বাড়ছে গরমের। মানুষজনের প্রাণ ওষ্ঠাগত হবার জোগাড়। এই সময়ে সুস্থ থাকতে কিছুটা বাড়তি সাব লাইফস্টাইল ডেস্ক গ্রীষ্মকাল তার পুরো তাপ নিয়ে জাঁকিয়ে বসেছে। দিনে দিনে তেজ বাড়ছে গরমের। মানুষজনের প্রাণ ওষ্ঠাগত হবার জোগাড়। এই সময়ে সুস্থ থাকতে কিছুটা বাড়তি সাব Rating: 0
You Are Here: Home » slider » গ্রীষ্মের তেজ প্রতিহত করে থাকুন সুস্থ ও প্রাণোচ্ছল

গ্রীষ্মের তেজ প্রতিহত করে থাকুন সুস্থ ও প্রাণোচ্ছল

গরমে-মেয়েদের-পোশাক-31

লাইফস্টাইল ডেস্ক

গ্রীষ্মকাল তার পুরো তাপ নিয়ে জাঁকিয়ে বসেছে। দিনে দিনে তেজ বাড়ছে গরমের। মানুষজনের প্রাণ ওষ্ঠাগত হবার জোগাড়। এই সময়ে সুস্থ থাকতে কিছুটা বাড়তি সাবধানতা অবলম্বন করা সবারই উচিত। বাচ্চা বা বয়স্ক মানুষ কেবল নয়, তরুণরাও থাকছে নানা রকম স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিতে। তাই সাবধান থাকা অবশ্য করণীয় কাজ।

ইট-পাথরের নগরকে তো নরক নামে ডাকা হয় এমনিতেই, এই সময়ের আগুনের মতো উত্তপ্ত নগর সেই নামটা পুরোপুরি সার্থক প্রমাণ করে যায়। তাপমাত্রার পারদ বাড়তেই থাকে, দিনে-দুপুরে বাইরে থাকা দায় হয়ে পড়ে। তবুও জীবিকার তাগিদে মানুষ বের হয় পথে। গরমের তেজকে মোকাবিলা করার ক্ষমতা নিয়েই এমন সময়ে বের হওয়া উচিত। হুট করে অসুস্থ হয়ে পড়া না লাগে, সেটা নিশ্চিত করতে হবে নিজেকেই।

Bangladeshi-model-Mehjabin-8

এই গরমে কেমন করে সজিব, সুস্থ ও প্রাণবন্ত থাকা যায়, তার কিছু পরামর্শ:

সর্ব প্রথম ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে। এর কোনো বিকল্প নেই বাইরে থেকে ফিরে নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার করতে হবে। বের হওয়ার সময় অবশ্যই সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন।  সপ্তাহে অত্যন্ত দুই দিন ঘরে তৈরি প্যাক লাগাতে হবে। এতে করে ত্বকের ভেতরের ময়লা দূর হয়ে ত্বকের উজ্বলতা ফিরে আসবে।
২ চামচ ময়দা, ১ চামচ মধু এবং পাকা কলার মাক্স লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো মানের ফেস ওয়াস ব্যবহার করুন। সপ্তাহে ২ থেকে তিন দিন স্ক্র্যাব লাগান। চালের গুঁড়া ভালো প্রাকৃতিক স্ক্র্যাবের কাজ করে। এছাড়াও পর্যাপ্ত পানি এবং পানীয় পান করতে হবে। টক-মিষ্টি-দই খেলে হজম ভালো হয়, ত্বকও ভালো থাকে।

বের হলে সবসময় সাথে পানি রাখা লাগবে। যতো অল্প সময়ের জন্যেই বাইরে যাওয়া হোক না কেনো এক বোতল পানি সাথে থাকা চাই। এই গরমে পিপাসা না লাগলেও শরীরে পানির প্রয়োজনীয়তা থাকে অনেক বেশি। গলা ভিজিয়ে রাখার জন্যে হলেও খানিকটা পানির মজুদ নিজের কাছে থাকা উচিত।

স্যালাইন অথবা গ্লুকোজ পানি খুব কাজে লাগে এই সময়ে। অধিক দুর্বলতা থাকলে বা বাইরের গরম সহ্য করার ক্ষমতা যদি কম থাকে তবে গ্লুকোজ পানি পান করাটা বেশ উপকারী হয়। সাধারণ পানির বদলে তাই স্যালাইন বা গ্লুকোজ পানি নেয়া যায় বোতলে।

দরকারের বাইরে রোদে ঘোরাঘুরি এড়িয়ে যেতে হবে। বাইরে কোন কাজ না থাকলে ভবনের ভেতর বা যেকোন ছায়াযুক্ত স্থানে অবস্থান করা ভালো। হয়তো আপনি নিজেকে শারীরিকভাবে সম্পূর্ণ ঠিক ভাবছেন, কিন্তু রোদের অত্যধিক তেজ আপনাকে অসুস্থ বোধ করাতে খুব বেশি সময় নেবে না। সামলে থাকুন আগেভাগেই।

jeera-water-714x402

ছাতা বহন করুন। ছাতা কেবল বাদলা দিনের সঙ্গী এমন ভুল ভাবনা নিশ্চয় আপনার নেই? চড়া রোদে হাঁটতে গেলে ছাতার দরকার বোধ হবেই। তাই দরকারের জিনিষ ব্যাগে ভরে রাখুন মনে করে।

হালকা রঙ ও হালকা নকশার পোশাক হোক গরমের দিনে আপনার পছন্দ। হালকা রঙগুলি সূর্যালোকের প্রতিফলন ঘটাবে, তাতে গরমে আরাম পাবেন আপনি। আর পোশাক যতো হালকা ততোই স্বস্তিদায়ক হয়। অনুষ্ঠান বা উতসবের জন্যেও পোশাক বাছাই করার আগে গরমের চিন্তা মাথায় রাখুন।

Capture-3

অল্প আহারে সন্তুষ্ট হোক উদর। খাবারে পরিমিতি আনুন। বাইরের এই মাথা ঘোরানো তাপে ভূরিভোজ দিয়ে যদি দেহের তাপও বাড়িয়ে ফেলেন, অসুস্থ হবার বেশি বাকি থাকবে না আপনার। খাবার বেছে চলুন, সবসময়ই সুস্থ থাকার মূলমন্ত্র এটা।

একবারে অনেক না খেয়ে স্বল্প পরিমাণে বারেবারে খেতে পারেন। বিরিয়ানি, পোলাও-মাংস জাতীয় খাবার খেলে তার সাথে পর্যাপ্ত সালাদ ও পানীয় রাখুন।

নিয়মিত পরিচ্ছন্নতা খুব বেশি জরুরী। সম্ভব হলে দিনে একাধিক বার গোসল করুন। বাইরে থেকে ফিরে ঘাম শুকিয়ে নিয়ে পানির ঝাঁপটায় নিজেকে পরিষ্কার করুন। ঘাম থেকে জীবাণু বাসা বাঁধবে শরীরে, ফলাফল পাবেন অসুস্থতায়।

lovley-summer-fruits-wallpapers-1024x768

বড় চুল খোলা না রেখে বেঁধে রাখুন সবসময়। খোলা চুল ঘাড়ে বা মুখের পড়ে থেকে র‍্যাশ হতে পারে ত্বকে। তাছাড়া ঘামে চিটচিটে ত্বকে চুল লেগে থাকাটা নিজের জন্য অস্বস্তিদায়ক, চুলেরও ক্ষতি হয় এতে।

কাপড় ধুয়ে পরিষ্কার রাখুন নিয়মিত। অপরিষ্কার কাপড় অসুস্থ করবে আপনাকেই। কাজেই সাবধান।

About The Author

admin

সংবাদের ব্যাপারে আমরা সত্য ও বস্তুনিষ্ঠতায় বিশ্বাস করি।বিশ্বাস করি, মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনায়। আমাদের প্রত্যাশা একাত্তরের চেতনায় বাংলাদেশ এগিয়ে যাক সুখী সমৃদ্ধশালী উন্নত দেশের পর্যায়ে।

Number of Entries : 7237

Leave a Comment

সম্পাদক : সুজন হালদার, প্রকাশক শিহাব বাহাদুর কতৃক ৭৪ কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স, ২৫৩-২৫৪ এলিফ্যান্ট রোড, কাঁটাবন, ঢাকা থেকে প্রকাশিত। ফোনঃ 02-9669617 e-mail: info@visionnews24.com
Design & Developed by Dhaka CenterNIC IT Limited
Scroll to top