The news is by your side.

এরদোয়ানের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ মোদি, তুরস্ক সফর বাতিল

0 391

 

কাশ্মীর ইস্যুতে তুরস্কের অবস্থানকে ‘কাণ্ডজ্ঞানহীন’ আখ্যা দিয়ে আঙ্কারায় সম্ভাব্য সফর বাতিল করেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে সৌদি আরব সফরের পর সেখান থেকে তার তুরস্কে যাওয়ার কথা ছিল।

কাশ্মীর ইস্যুতে গত মাসে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে দেয়া ভাষণে ভারতের তুমুল সমালোচনা করেছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। যে কারণে নয়াদিল্লি সরকার তার প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আঙ্কারা সফর বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া ট্যুডে এক প্রতিবেদনে বলছে, গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত সংবিধানের বিশেষ অনুচ্ছেদ বাতিলের ঘটনায় ভারতের সমালোচনা করে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণ দিয়েছিলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছিলেন, সংঘাত নয়, বরং ন্যায় বিচার ও সমতার ভিত্তিতে সংলাপের মাধ্যমে কাশ্মীর সঙ্কটের সমাধান করা উচিত।

তিনি আরো বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার স্থিতিশীলতা ও সমৃদ্ধিকে কাশ্মীর ইস্যু থেকে আলাদা রাখা যাবে না। সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে তুর্কি প্রেসিডেন্টের এই বক্তব্যের জবাবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাবিশ কুমার বলেন, তুরস্কের প্রেসিডেন্টের বক্তব্যে কোনো ধরনের অনুশোচনা নেই ভারতের। কারণ এটি পুরোপুরি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

পাশাপাশি তিনি জানান, কাশ্মীর ইস্যু কী, তা তুরস্ককে বুঝিয়েও দেয়া হয়েছে, যাতে তারা এ ধরনের মন্তব্য থেকে বিরত থাকে।

জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা দেয়া ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর মোদি সরকারকে একঘরে করতে চাইছে পাকিস্তান। চীনকে পাশে নিয়ে বিষয়টি আন্তর্জাতিক মহলেও তুলে ধরেছে দেশটি। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘটনায় তুরস্কের অবস্থান শুরু থেকেই ভারতের বিপক্ষে।

এরদোগান চাইছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনার মধ্য দিয়ে যেন সংকটের সমাধান করা হয়। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনেও বিষয়টি জোরালোভাবে উপস্থাপন করেছেন তিনি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.