The news is by your side.

উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী :হাসপাতালে ৮০ ভাগই ডেঙ্গু রোগী

0 48

 

 

জ্বর হলেই হাসপাতালে গিয়ে পরীক্ষা করলে ধরা পড়ছে ডেঙ্গু সরকারিবেসরকারি হাসপাতালে এখন আর তিল ধারণের ঠাঁই নেই ভর্তি ৮০ ভাগই ডেঙ্গু রোগী মিনিটে মিনিটে বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে শকে গিয়ে ইতিমধ্যে বক্ষব্যাধি হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স হাসি সমাদ্দার (১৮) মারা গেছেন। ডেঙ্গুর এমন ভয়াবহ প্রকোপ নিয়ে ভীষণ উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বর্তমানে লন্ডন সফরে থাকলেও তিনি প্রায় প্রতিদিন টেলিফোনে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেকের কাছে পরিস্থিতি জানতে চাচ্ছেন।

বিশেষ করে রোগীরা যেন সুচিকিৎসা পান সে বিষয়ে সতর্ক থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি। এদিকে রাজধানীসহ সারা দেশে সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগের চিকিত্সায় ওয়ান স্টপ সেন্টার চালু হচ্ছে। এ সেন্টার থেকে ডেঙ্গু রোগীদের প্রাথমিক সেবা প্রদান, প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও জটিল রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। ভয়ানক ডেঙ্গু জ্বরের অসহনীয় পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য এবং পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে রোগীদের বিনামূল্যে চিকিত্সাসেবা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। রোগীদের দিতে হবে না কোন ধরনের ফি।

এদিকে, কোনো কোনো বেসরকারি হাসপাতাল ডেঙ্গু জ্বর পরীক্ষার নামে প্রয়োজন নেই এমন পরীক্ষাও দিচ্ছে। এভাবে হাসপাতালগুলো ব্যবসা করছে- বেসরকারি হাসপাতালের কয়েকজন চিকিত্সক এমন অভিযোগ করেছেন।

জানা গেছে, এ বছর অ্যাডিস মশার কামড়ে আক্রান্ত হচ্ছেন ধনী-দরিদ্র নির্বিশেষে সকলে। তবে দরিদ্র ও মধ্যবৃত্তি মানুষের মাধ্য আক্রান্তের হার এ বছর বেশি। কর্মক্ষম মানুষের ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হওয়ায় অনেক পরিবার আর্থিক সংকটে পড়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ হাসপাতালগুলোতে ওয়ান স্টপ সেন্টার চালুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ডেঙ্গু রোগীদের সুচিকিত্সা নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই একই স্থান থেকে প্রয়োজনীয় সেবা দিতে ওয়ান স্টপ সেন্টার চালুর সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী দু-তিন দিনের মধ্যেই এ সেন্টার চালু হবে। তিনি আরো বলেন, ডেঙ্গু রোগের চিকিত্সার ক্ষেত্রে গাইড লাইন সঠিকভাবে অনুসরণ করলেই ঝুঁকি বহুলাংশে কমে যাবে। ঢাকা শিশু হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. শফি আহমেদ বলেন, এ হাসপাতালে ৭০ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিত্সাধীন। ডেঙ্গু রোগীর চাপে অন্য রোগীদের চিকিত্সা বিঘ্নিত হচ্ছে। কিন্তু কিছুই করার নেই। ডেঙ্গু রোগীদের জন্য বহিঃবিভাগে রক্ত পরীক্ষা ফ্রি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি বলেছেন, ডেঙ্গু রোগের চিকিত্সায় বাংলাদেশের সাফল্য বিশ্বের যেকোন দেশের তুলনায় এগিয়ে রয়েছে। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত দেশগুলোর মধ্যে ফিলিপাইনে প্রায় ৫০০ জন, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়ায় প্রায় ১০০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। অথচ বাংলাদেশে গত জানুয়ারি থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ৭৭৬৬ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হলেও ৫৯৩৮ জন ডেঙ্গু রোগীই দেশের সরকারি হাসপাতালগুলো থেকে সেবা নিয়ে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরে গেছেন। এর মধ্যে ডেঙ্গু জ্বরে দেশে মাত্র ৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সুতরাং ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্কিত হবার কিছু নেই। ডেঙ্গু রোগে সুচিকিত্সার সব ধরনের ব্যবস্থাপনা সরকারি হাসপাতালে রয়েছে।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। মিডিয়াকে আতঙ্ক ছড়ানোর মতো সংবাদ প্রকাশ না করতে অনুরোধ জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। জাহিদ মালেক বলেন, ‘বর্তমানে অ্যাডিস মশা অনেক হেলদি। তাদের প্রজনন ক্ষমতাও বেশি। রোহিঙ্গাদের মতই তাদের প্রজনন ক্ষমতা। যেভাবে রোহিঙ্গা পপুলেশন আমাদের দেশে এসে বেড়েছে, সেভাবেই এই মসকিউটো পপুলেশনও বেড়েছে। আমরা তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি।’

সিটি করপোরেশনের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ভালো ওষুধ স্প্রে করেন। যাতে অ্যাডিস মশা না বাড়তে পারে। সেইসঙ্গে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

অ্যাডিস মশা বৃদ্ধির কারণ

মশা নিয়ে গবেষণা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণী বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক কবিরুল বাশার। তার মতে, এবার ফেব্রুয়ারিতে বৃষ্টি হয়েছে। অ্যাডিস মশার ডিম (লার্ভা) ছয় মাস পর্যন্ত শুকনো স্থানে থাকলে বেঁচে থাকতে পারে। এবার আগে বৃষ্টির কারণে ও এখন থেমে থেমে বৃষ্টির কারণে অ্যাডিস মশার ঘনত্ব বাড়ছে।

 

 

 

 

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.