The news is by your side.

আসামে নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ পড়েছেন অনেক হিন্দু, বিপাকে পড়েছে রাজ্য বিজেপি

0 36

 

ভারতের মাটিতে অনুপ্রবেশকারীদের জায়গা নেই। এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর এক প্রতিক্রিয়ায় ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এই কথা জানান।

উল্লেখ্য, নাগরিকপুঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ১৯ লাখের বেশি মানুষ। নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য ফরেনার্স ট্রাইবুন্যালে ১২০ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে তাদের। যদি সেখানেও নাগরিকত্ব প্রমাণে ব্যর্থ হন, তাহলে হাইকোর্ট পরে সুপ্রিমকোর্টেও যেতে পারেন তারা।

রোববার দু’দিনের সফরে আসামে গিয়েছেন তিনি। এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া এলো কাছ থেকে। খবর জি নিউজের।

অমিত শাহ জানান, সংবিধানের ৩৭১ অনুচ্ছেদে উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলিকে বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। ৩৭১ অনুচ্ছেদকে সম্মান করে তার সরকার। এমনকি ওই অনুচ্ছেদ প্রত্যাহারে কোনো সম্ভাবনা নেই।

উল্লেখ্য, জম্মু-কাশ্মীরে অনুচ্ছেদ ৩৭০ প্রত্যাহারের পরই এমন আশঙ্কা উঠতে শুরু করে উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলির মধ্যে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম আসাম গেলেন অমিত শাহ। তার আগে বিজেপির প্রধান হিসেবে একাধিকবার আসামে বিদেশি অনুপ্রবেশ নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তিনি। লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে তিনি বিদেশিদের ‘উইপোকা’র সঙ্গেও তুলনা করেন।

এদিকে, নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ পড়েছেন অনেক হিন্দু। ফলে বাংলাদেশি মুসলিম অনুপ্রবেশকারীর তত্ত্ব অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে। তাতেই বিপাকে পড়েছে রাজ্য বিজেপি। এ নিয়ে প্রকাশ্যে ক্ষোভ জানিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

বিশ্ব শর্মা বলেন, এই এনআরসি আসামকে বিদেশিমুক্ত করতে পারবে না। এর জন্য নতুন পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে যে নাগরিকপঞ্জি তৈরি হচ্ছে তাতে আমার কোনো আশা নেই। খসড়া তালিকা তৈরি হওয়ার সময় থেকেই তা বলছি। প্রকৃত নাগরিকরা বাদ পড়ছেন। তাহলে কীভাবে মেনে নেব এটি রাজ্যের মানুষদের ভালোর জন্য তৈরি হয়েছে?

নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়াদের নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য ফরেনার্স ট্রাইবুন্যালে ১২০ দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে তাদের। যদি সেখানেও নাগরিকত্ব প্রমাণে ব্যর্থ হন, তাহলে হাইকোর্ট পরে সুপ্রিম কোর্টেও যেতে পারবেন তারা।

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.